লকডাউনের ঘরবন্দী জীবনের প্রেক্ষাপটে তৈরি শর্টফিল্ম “অপেক্ষা ” বানিয়ে সাড়া ফেলেছেন দিনহাটার উদয়ন চক্রবর্তী

সুমন মন্ডল ,কোচবিহার : লকডাউনে প্রায় তিন মাস ধরে স্কুল বন্ধ বিচ্ছিন্ন যোগাযোগ ব্যবস্হা। এরইমধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মোবাইইলে শুট করে ঘরবন্দী জীবনের প্রেক্ষাপটে শর্ট ফিল্ম বানিয়ে সাড়া ফেলেছেন দিনহাটার পরিচালক উদয়ন চক্রবর্তী। শর্টফিল্মটির কাহিনীকার উদয়ন নিজেও। ঘরবন্দী অবস্থায় কেমন হচ্ছে স্কুল পড়ুয়াদের পড়াশুনা ?

তাদের দৈনন্দিন জীবনের উপরই বা কেমন প্রভাব পরেছে? কীভাবে কাটছে তাদের অভিভাবকদের দিন? করোনা ভাইরাসের এই কঠিন সময় কালে লকডাউনের কারণে ঘর বন্দী জীবনের নানা প্রেক্ষাপট তুলে ধরে এই শর্ট ফিল্মের নাম দেওয়া হয়েছে “অপেক্ষা ”।


ছবির কাহিনীকার ও পরিচালক উদয়ন চক্রবর্তী কলকাতার একটি প্রতিষ্ঠানের কয়েক বছর অভিনয় ও পরিচালনা নিয়ে পড়াশুনা করেছেন। লকডাউনের কারণে বর্তমানে তিনি দিনহাটা তেই থাকায় এই সময়কালে দিনহাটার স্থানীয় শিল্পীদের নিয়ে ঘরবন্দী জীবনের প্রেক্ষাপটে শর্ট ফিল্ম তৈরি করেন।

তার শর্টফিল্মের মধ্য দিয়ে তুলে ধরেছেন ঘরবন্দী জীবনের প্রেক্ষাপট । তার এই শর্ট ফিল্মে অভিনয় করেছেন আবু আরশাদ আযুব, অমৃতা মন্ডল, অরিন্দম দাস, রুপসী চন্দ, মেঘা সরকার,নবনিতা পোদ্দার , জারিন আযুব, গৌনিক দাস সহ অনেকেই।

এই শর্ট ফিল্মের অভিনেতা আবু আরশাদ আয়ুব, অরিন্দম দাস বলেন করোনাভাইরাস নিয়ে ভারতবর্ষ সহ গোটা পৃথিবী এক কঠিন সমস্যার মধ্যে যাচ্ছে। লকডাউনের ফলে একটানা দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে গৃহবন্দি হয়ে জীবন কাটাচ্ছে মানুষ। এই পরিস্থিতিতে বিভিন্ন বিষয়কে পরিচালক তার শর্টফিল্মে তুলে ধরার চেষ্টা করছেন।


উদয়ন জানান করোনাভাইরাস ভারতবর্ষের সহ গোটা পৃথিবী জুড়ে মানুষকে আক্রমণ করেছে। লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলছে আক্রান্তের সংখ্যা। গোটা পৃথিবীতেই বহু মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আর এই ভাইরাসের থেকে রক্ষা পেতে দফায় দফায় শুরু হয়েছে লকডাউন। আর এই পরিস্থিতিতে টানা গৃহবন্দি অবস্থায় থাকাকালীন কেমন হচ্ছে স্কুল পড়ুয়াদের পড়াশুনা, তাদের দৈনন্দিন জীবনের উপরই বা কেমন প্রভাব পড়ছে, কিভাবে কাটছে তাদের অভিভাবকদের দিন, এই অবস্থায় কি কি অসুবিধার সম্মুখীন ছাত্রছাত্রীরা, তাদের পারিবারিক সম্পর্কের টানাপোড়েন ই বা কেমন। এসবই তুলে ধরা হয়েছে ।

পরিচালক উদয়ন চক্রবর্তী জানান,বর্তমান পরিস্থিতির দিকে নজর রেখে শিল্পীরা নিজেদের ঘরে থেকেই ছবির দৃশ্য গুলি ফুটিয়ে তুলেছে। বর্তমান কঠিন এই সময় কালে লকডাউন অবস্থায় শিশু এবং অভিভাবক দের পরিস্থিতি কি এই ছবির মধ্যে সেটাই তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন । ঘর বন্দী অবস্থায় থাকাকালীন তার এই শর্ট ফিল্ম দর্শকদের মন কারবে বলেও তিনি আশাবাদী। আগামী সপ্তাহেই এই শর্ট ফিল্মটি মুক্তি পেতে চলেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *