লুইস কুজুরের সমর্থনে সোহম ও সায়ন্তিকাকে নিয়ে খোয়ারডাঙায় জনসভা অভিষেকের

বাবুল সরকার, কামাখ্যাগুড়ি, ৮ এপ্রিলঃ অভিনেতা সোহম ও অভিনেত্রী সায়ন্তিকাকে সঙ্গে নিয়ে কুমারগ্রামের তৃণমূল প্রার্থী লুইস কুজুরের সমর্থনে জনসভা করলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সর্ব ভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমারগ্রাম ব্লকের খোয়ারডাঙা জলনেশ্বরী হাই স্কুলের মাঠে ওই জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল থেকেই জনসভায় উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা যায়।

দুই তারকাকে সঙ্গে নিয়ে দুপুর ১২টা ৪৫ নাগাদ হেলিকপ্টারে চেপে জনসভা স্থলের অস্থায়ী হেলিপ্যাডে নামেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। ভিড়ে ঠাসা জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে বিজেপিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, বিজেপি’র কাজ শুধু ভাওতাবাজি করা, মিথ্যা কথা বলা। মানুষের জন্য বিজেপি কাজ করে না। ভাওতা দিয়ে বাংলা দখলের চেষ্টা করছে বিজেপি। অন্যদিকে, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দশ বছর সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করেছেন।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেন, রাজ্যে তৃণমূল সরকার তৈরি হলে বাড়ি বাড়ি রেশন পৌঁছে দেওয়া হবে। কাউকে আর লাইনে দাঁড়িয়ে রেশন নিতে হবে না। এদিনের জনসভা থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূল ত্যাগীদেরও সমালোচনা করেন।

তিনি বলেন, ‘এই নির্বাচন শুধুমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী করার নির্বাচন নয়, যারা বাংলার মানুষের আশীর্বাদ ও ভালোবাসায় নেতা হয়ে দিল্লিতে কোটি টাকায় সেই ভালোবাসা বিক্রি করেছে, সেই সমস্ত বিশ্বাসঘাতকদের জামানত জব্দ করার নির্বাচন।’ জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে সোহম ও সায়ন্তিকাও বিজেপি’র সমালোচনায় হরব হন। কুমারগ্রামের তৃণমূল প্রার্থী লুইস কুজুরকে বিপুল ভোটে জয়ী করার আবেদন জানান তারা।

এদিনের জনসভায় তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়, দলের আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী, জেলা পরিষদের সভাধিপতি শীলা দাস (সরকার), তৃণমূল প্রার্থী লুইস কুজুর সহ অন্যান্য নেতৃত্বরা উপস্থিত ছিলেন।

জনসভা শেষে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী লুইস কুজুর বলেন, ‘সমাবেশে মানুষের উপস্থিতিই প্রমাণ করছে কুমারগ্রাম কেন্দ্রে তৃণমূলের জয় শুধু সময়ের অপেক্ষা। মানুষের আশীর্বাদে রাজ্যে পুনরায় মা-মাটি-মানুষের সরকার প্রতিষ্ঠিত হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *