বাইক চুরি চক্রের মূল পাণ্ডাকে গ্রেফতার করল পুলিশ

নিজস্ব সংবাদদাতা:পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি শহরের একাধিক বাইক চুরি ঘটনার বেড়েই চলেছিল। এনিয়ে উদ্বেগ বাড়ছিল কাঁথি শহরের বাসিন্দাদের মধ্যে। বাইক চুরির ঘটনায় তদন্তে নেমে কাঁথি থানার পুলিশ বড়সড় সাফল্য পেল।

বাইক চুরি চক্রের তদন্তে নেমে মুল পাণ্ডাকে গ্রেফতার করলো কাঁথি থানার পুলিশ। বাকীদের খোঁজে পুলিশ তল্লাশি শুরু করেছে। কাঁথি থানার পুলিশ জানিয়েছে ধৃত অজয় দাস, তার বাড়ী উড়িষ্যার। রবিবার ধৃতকে কাঁথি আদালতে তোলা হয়। বিচারক তার জামিন নাকচ করে আট দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূএে জানাগেছে,গত এক মাস ধরে কাঁথি শহরের একাধিক বাইক চুরির ঘটনার বেড়েই চলেছিল। বাইক চুরি ঘটনার বাড়তে থাকার রীতিমত আতঙ্কিত কাঁথি শহর বাসী। গত ১৫ দিনে কাঁথি আদালত এলাকা থেকে ১০ টি মোটরবাইক চুরি গেছে। চুরি যাওয়া বাইক মালিকদের তালিকায় রয়েছেন, আইনজীবী থেকে মক্কেল, আদালতের কর্মী থেকে ল ক্লার্করা। কাজেই এমন ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছাড়িয়েছে কাঁথি আদালত এলাকায়।


পরিস্থিতি এমন যে, বাইক চুরির ঘটনা নিয়ে কাঁথি আদালতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের রীতিমত নাভিশ্বাস উঠেছে। শুধু আদালত নয় কাঁথি শহরের বিভিন্ন এলাকায় থেকে একাধিক বাইক চুরির ঘটনার ঘটে চলেছিল।

বাইক ঘটনার কাঁথি থানার পুলিশ সাদা পোশাকের গোটা এলাকায় নজরদারি চালাছিল। পাশাপাশি শহরের লাগানো থাকা সিসিটিভি ফুটেজ উপর নজরদারি রেখেছিল। শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ বাইক চুরির ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে পুলিশ উড়িষ্যার অজয় দাসকে গ্রেফতার করে। ঘটনার তদন্তে স্বার্থে অভিযুক্তকে কাঁথি আদালত থেকে নিজেদের হেফাজতে নেয় পুলিশ।

কাঁথি থানার আই সি অমলেন্দু বিশ্বাস বলেন ” বাইক চুরির ঘটনার তদন্তে নেমে এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্তে কারণে অভিযুক্তকে কাঁথি আদালত থেকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। চুরি যাওয়ার বাইক উদ্ধার করতে তদন্ত শুরু করা হয়েছে। বাইক চুরির ঘটনার বড়সড় চক্র রয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে আনুমান করা হচ্ছে। যদিও তদন্তে কারণে আর বেশি কিছু জানাতে রাজী হয়নি পুলিশ “।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *